দেশফিচারমনন-অনুধাবন

মধ্যাকর্ষণের বিপরীতে চলে মহারাষ্ট্রের এই জলপ্রপাত!

আমরা সকলেই জানি আইজ্যাক নিউটনের সূত্র অনুযায়ী মাধ্যাকর্ষণের টানে কোনও জিনিসই বাতাসে ভেসে থাকতে পারে না। মাটিতে পড়তে সে বাধ্য, উল্টো দিকে উঠে যাওয়ার তো কোনও প্রশ্নই ওঠে না। তবে প্রকৃতির থেকে বড়ো জাদুকর যেন আর কেউ নেই। এই অমোঘ সত্যকেই যেন চ্যালেঞ্জ জানায় আমাদের দেশের নানেঘাট জলপ্রপাত।

পুনে থেকে ১২৯ কিলোমিটার এবং মুম্বাই থেকে ১৬৫ কিলোমিটার দূরে অবস্থিত নানেঘাট পাহাড়প্রেমীদের জন্য অন্যতম ট্রেকিংয়ের জায়গা। বর্ষাকালে পশ্চিমঘাট পর্বতমালার কাছে অবস্থিত এই নানেঘাটের সৌন্দর্য দ্বিগুণ হয়ে ওঠে।

আরো পড়ুন : কিংবদন্তি ফ্রেডি মার্কারির শৈশব কেটেছিল ভারতে

মাধ্যাকর্ষণ শক্তির প্রভাবে সমস্ত কিছু পৃথিবী নিজের কেন্দ্রের দিকে আকর্ষণ করে। কিন্তু এখানের জলপ্রপাতটি যেন মাধ্যাকর্ষণের সম্পূর্ণ বিপরীতে বয়ে চলে। এই জায়গায় প্রবাহিত প্রবল শক্তিশালী বাতাস জলপ্রপাতের জলধারাকে নিম্নমুখী হতে দেয় না, তা ওপরের দিকে ঠেলে বিপরীতে উঠিয়ে দেয়। পাহাড়ের কোল জুড়ে ঊর্ধ্বমুখী জলরাশি আগত পর্যটকদের শরীর স্পর্শ করে। আর ঠিক এই কারণেই এই জলপ্রপাতটি আর পাঁচটা জলপ্রপাতের থেকে সম্পূর্ণ আলাদা।

ইতিহাস ঘেঁটে জানা যায়, ছত্রপতি শিবাজি তাঁর শাসনকালে এই ট্রেকিংয়ের রাস্তা দিয়েই ব্যবসা-বাণিজ্যের কাজ চালাতেন। এখানকার ভাঙা পাথর, প্রাচীন গুহা সবকিছুই আজও সেই সময়কার গল্পের সাক্ষী হয়ে রয়ে গেছে। নানেঘাট জলপ্রপাতে ট্রেক করতে গেলে চেষ্টা করবেন একটা গোটা দিন রাখার। সারাটা দিন ট্রেক করতে পারেন, নানেঘাটে পিকনিক করতে পারেন।

আরো পড়ুন : লোভনীয় মিষ্টি দরবেশ বানাবেন কীভাবে?

সময় যে কীভাবে কেটে যাবে টেরও পাবেন না। জলপ্রপাত পর্যন্ত যেতে আসতে কম করে পাঁচ ঘণ্টা সময় লাগবে। এতটা পথ হাঁটাহাঁটি করে বেজায় খিদে পাওয়াই স্বাভাবিক। তাই জলপ্রপাতের কাছেই পেয়ে যাবেন ঝুপড়ি হোটেল। সেখানে খাবার, চা, জল, শরবত সবই হাজির। এছাড়াও পাবেন পাও ভাজি, বড়া পাও, পুরন পোলি, মিসল পাও, মশলা ভরা বেগুন, রাগড়া প্যাটিস আর এমন আরও অনেক কিছুই।

ভালোবাসার পক্ষে থাকুন, নিবিড়-এর সঙ্গে থাকুন

About author

Articles

সমাজ ও সংস্কৃতির বাংলা আন্তর্জাল পত্রিকা ‘নিবিড়’। বহুস্বর এবং জনগণের সক্রিয়তা আমাদের রাজনৈতিক অবস্থান।
নিবিড় ডেস্ক
Related posts
ফিচারমনন-অনুধাবন

পৃথিবীতে সোনা এল কীভাবে?

প্রাক-কলোম্বীয় যুগের আদি আমেরিকানরা বিশ্বাস করতেন যে হলুদ ধাতু সোনা আসলে সূর্য দেবতার ক্ষমতাকে দখল করেছে। তাঁদের এই বিশ্বাসের ভিত্তি ছিল এই যে, আমাদের পৃথিবীর সমস্ত উপাদান আসলে বহির্বিশ্বের৷ তবে ভূতত্ত্ববিদরা ধাতুর উৎপত্তি সম্পর্কে চর্চা…
Read more
মনন-অনুধাবনরবিবারের কলম

ইন্দিরা গান্ধি খুন হয়েছেন

তখন দার্জিলিঙে পড়াই। সেদিন দুপুরে কী কাজে যেন বাড়ি এসেছি। বাড়ি মানে ভাড়াবাড়ি পাহাড়ের কোলে। একদিকে একটা মেয়েদের নামি স্কুল অন্যদিকে হ্যাপি ভ্যালি চা বাগান। সে সময় দার্জিলিং কেন, কলকাতাতেও বুঝি সামান্য কিছু বাড়িতে এসেছে…
Read more
ফিচারবিদেশমনন-অনুধাবন

পৃথিবীর দীর্ঘতম রেলপথ গড়ে উঠল কীভাবে?

ট্রান্স সাইবেরিয়ান রেলওয়ে নেটওয়ার্ক পৃথিবীর দীর্ঘতম রেলপথ যা রাশিয়ার দূরবর্তী ও প্রত্যন্ত অঞ্চল সাইবেরিয়ার সঙ্গে মস্কোকে যুক্ত করেছে। ৯২৮৯ কিলোমিটার লম্বা এই রেলপথ দুটি শাখার মাধ্যমে চিন, মঙ্গোলিয়া ও উত্তর কোরিয়াকেও যুক্ত করেছে। ১৯১৬ সাল…
Read more

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

ফিচারবিদেশমনন-অনুধাবন

ইথিওপিয়ার চাকতি অলংকার

Worth reading...