খবরদেশরাজ্য

পেগাসাস ইস্যুতে স্বতঃপ্রণোদিত মামলা করুক সুপ্রিম কোর্ট, একুশের সভায় আর্জি মমতা

করোনা আবহে বুধবার কালীঘাট থেকেই একুশে জুলাইয়ের ভার্চুয়াল সভায় বক্তব্য রাখেন তৃণমূল কংগ্রেস সুপ্রিমো মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। আর সেখান থেকে একাধিক ইস্যুতে নরেন্দ্র মোদিকে একের পর এক তোপ দাগেন মমতা। পেগাসাস বিতর্কে সুপ্রিম কোর্টের বিচারপতির কাছে স্বতঃপ্রণোদিত মামলা দায়েরের আর্জি তৃণমূল সুপ্রিমোর।  তিনি বলেন, ‘দয়া করে দেশকে বাঁচান, স্বতঃপ্রণোদিতভাবে পদক্ষেপ নেওয়ার জন্য কোর্টকে অনুরোধ করছি।’

এদিন মমতা সরাসরি অভিযোগ করেন যে অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়, প্রশান্ত কিশোর-সহ তাঁর পরিচিত সাংবাদিকদের ফোনও ট্যাপ করা হচ্ছে। নিজের ফোনে প্লাস্টার লাগিয়ে তা তুলে ধরেন। তৃণমূল সুপ্রিমোর সাফ কথা, পেগাসাস সফটও্যার ব্যবহার করে দেশের গণতন্ত্রকে ধ্বংস করা হচ্ছে। এদিন মমতা সরাসরি অভিযোগ করেন যে অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়, প্রশান্ত কিশোর-সহ তাঁর পরিচিত সাংবাদিকদের ফোনও ট্যাপ করা হচ্ছে। নিজের ফোনে প্লাস্টার লাগিয়ে তা তুলে ধরেন। তৃণমূল সুপ্রিমোর সাফ কথা, পেগাসাস সফটও্যার ব্যবহার করে দেশের গণতন্ত্রকে ধ্বংস করা হচ্ছে।

সর্বভারতীয় সংবাদমাধ্যমের দাবি অনুসারে শুধু অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ই নন, স্পাইওয়ারের নজর থেকে বাদ যায়নি তৃণমূল সাংসদের ব্যক্তিগত সচিবের ফোনও। এমনকি বিধানসভা নির্বাচনে তৃণমূলের ভোট কৌশলী প্রশান্ত কিশোরের ফোনেও আড়িপাতা হয়েছিল বলে দাবি। ইরানিয়ান স্পাইওয়ারের মাধ্যমে একুশের ভোটের পর্বের আগে প্রশান্ত কিশোর ঘনিষ্ঠ এবং যারা তাঁর সঙ্গে কাজ করেছিলেন তাদের ফোনেও নজরদারি চালানোর সম্ভাবনা উঠে আসে।

নিবিড় ডেস্ক