খবরভোটবাদ্যি ২০২১রাজ্য

ভোট পরবর্তী হিংসা পর্যবেক্ষণে নন্দীগ্রামে রাজ্যপাল, ফের নিশানায় শাসকদল

ভোট পরবর্তী হিংসা-বিধ্বস্ত নন্দীগ্রাম পরিদর্শনে আজ রাজ্যপাল জগদীপ ধনখড়। দশটার কিছু আগে বিএসএফ-এর হেলিকপ্টারে হরিপুরের অস্থায়ী হেলিপ্যাডে তিনি সেখানে পৌঁছান। সেখানে তাঁকে স্বাগত জানান, স্থানীয় বিধায়ক কথা রাজ্যের বিরোধী দলনেতা শুভেন্দু অধিকারী। তাঁদের দুজনকে বেশ কিছুক্ষণ কথা বলতেও দেখা যায়। এর পর রাজ্যপাল গ্রাম পরিদর্শন শুরু করেন। দক্ষিণ কেন্দামারির কালীনগর গ্রাম থেকে পরিদর্শন শুরু করেন রাজ্যপাল। গ্রামবাসীদের কাছে তিনি সেখানকার পরিস্থিতি সম্পর্কে জানতে চান। বহু গ্রামবাসী কান্নায় ভেঙে পড়েন। যা দেখে রাজ্যপালও আবেগপ্রবণ হয়ে পড়েন।

বিজেপির অভিযোগ ভোটের ফল বেরনোর পর থেকেই তৃণমূল আশ্রিত দুষ্কৃতীরা তাদের কর্মীদের বাড়িতে হামলা চালিয়েছে। সম্পত্তি লুট করেছে। এদিন রাজ্যপাল চিলাগ্রাম, নন্দীগ্রাম বাজার, টাউন ক্লাব-সহ বিভিন্ন জায়গায় পরিদর্শন করবেন বলেই সূত্রের খবর। উল্লেখ্য, ২০০৭ সালে নন্দীগ্রাম গণহত্যার পর সেখানে গিয়েছিলেন তৎকালীন রাজ্যপাল গোপালকৃষ্ণ গান্ধী। আর এবার গেলেন রাজ্যপাল জগদীপ ধনখড়। গ্রাম পরিদর্শনের পাশাপাশি তিনি নন্দীগ্রামের জানকীনাথ মন্দিরে পুজো দেবেন বলেও জানা গিয়েছে।

নন্দীগ্রামে পৌঁছেই চেনা ভঙ্গিতে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের পাশাপাশি রাজ্য প্রশাসনকে নিশানা করেন রাজ্যপাল। তিনি বলেন, করোনায় সংকটজনক পরিস্থিতির মধ্যে দিয়ে যাচ্ছে রাজ্য। পাশাপাশি রাজ্য জুড়ে চলছে ব্যাপক ভোট পরবর্তী হিংসা। মুখ্যমন্ত্রীর প্রতি আবেদন জানিয়ে তিনি বলেছেন, ওঁর এদিকে নজর দেওয়া উচিত, এই হিংসায় লক্ষ লক্ষ মানুষ ক্ষতিগ্রস্ত। আগ্নেয়গিরির ওপরে দাঁড়িয়ে আছে রাজ্য। রাজ্যপালের এই সিদ্ধান্তকে স্বাগত জানিয়েছ বিজেপি। বিজেপি বলেছে, সাংবিধানিক দায়বদ্ধতা পালন করছেন রাজ্যপাল।পাল্টা রাজ্যপালকে নিশানা করেছে তৃণমূল। শাসক দলের পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, সরকারি অর্থে রাজ্যে উস্কানি ছড়াচ্ছেন রাজ্যপাল। দেশের কোনও রাজ্যপাল এমন করেননি। সাংবিধানিক রীতিনীতি ভঙ্গ করছেন তিনি। বিজেপির এজেন্ট হয়েই যেন নেমেছেন।

নিবিড় ডেস্ক

About author

Articles

সমাজ ও সংস্কৃতির বাংলা আন্তর্জাল পত্রিকা ‘নিবিড়’। বহুস্বর এবং জনগণের সক্রিয়তা আমাদের রাজনৈতিক অবস্থান।
নিবিড় ডেস্ক

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *