কলকাতাখবররাজ্য

“মুখ্যমন্ত্রী আমাদের পরিবারের মতো”, দলে ফেরার জল্পনা বাড়িয়ে মমতার প্রশংসায় বৈশাখী-শোভন

মুকুল রায় দলে ফিরেছেন সদ্যই৷ রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায়ও তৃণমূলে ফেরার চেষ্টা করছেন বলে জল্পনা চলছে৷ আর এবার সেই তালিকায় নাম জুড়ল শোভন চট্টোপাধ্যায়েরও৷ রবিবার রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায়ের পর গতকাল বান্ধবী বৈশাখী বন্দ্যোপাধ্যায়কে সঙ্গে নিয়ে পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের বাড়িতে যান শোভন৷ আর সেখানেই জল্পনা বাড়িয়ে বৈশাখীর মুখে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের প্রশংসা শোনা যায়৷ রবিবার প্রয়াত হন পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের মা শিবানী চট্টোপাধ্যায়৷ গতকালই পার্থবাবুর সঙ্গে দেখা করতে যান রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায়৷ ওই দিনই রাত সাড়ে আটটা নাগাদ বৈশাখী বন্দ্যোপাধ্যায়কে নিয়ে তৃণমূল মহাসচিবের বাড়িতে হাজির হন শোভন চট্টোপাধ্যায়৷ প্রায় দেড় ঘণ্টা পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের বাড়িতে ছিলেন তাঁরা৷ পার্থবাবুর বাড়ি থেকে বেরিয়ে শোভন অবশ্য দাবি করেন, মাতৃ বিয়োগের পর পার্থবাবুকে সমবেদনা জানাতেই এসেছিলেন তাঁরা৷

তবে শোভন এ কথা বললেও বৈশাখীর কথায় বেড়েছে জল্পনা৷ কারণ নারদ কাণ্ডে শোভনের গ্রেফতারির সময় মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় পাশে থাকায় তাঁর প্রতি কৃতজ্ঞতা জানিয়েছেন বৈশাখী৷ শুধু তাই নয়, মমতা শোভনের কাছে পরিবারের একজনের মতো বলেও দাবি করেন তিনি৷ বৈশাখী বলেন, ‘কঠিন সময়ে উনি যেভাবে উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন, পাশে থেকেছেন, সাহস জুগিয়েছেন সেটা কখনওই ভোলা যায় না৷ উনি ওনার বাকি তিন সহকর্মীর প্রতি যতখানি চিন্তিত ছিলেন, শোভনের বিষয়েও ততটাই চিন্তিত ছিলেন৷ বিশেষত যেভাবে উনি সঙ্কটের সময় পাশে থেকেছেন, তাতে কৃতজ্ঞতা প্রকাশের ভাষা থাকে না৷ শোভনের সঙ্গে মমতাদির বরাবরই আন্তরিক সম্পর্ক৷’ শোভন চট্টোপাধ্যায়ের তৃণমূলে ফেরার জল্পনা আরও বাড়িয়ে বৈশাখী বলেন, ‘শোভনের কাছে দিদির স্থান বা দিদির কাছে কাননের স্থান বদলাবে না৷’

বৈশাখীর এ দিনের এই মন্তব্যের পর শোভনের ভবিষ্যৎ পদক্ষেপ নিয়ে রাজনৈতিক মহলে জল্পনা স্বাভাবিকভাবেই আরও বাড়ল৷ কারণ মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ও ইঙ্গিত দিয়েছেন, নির্বাচনের আগে যাঁরা দল ছেড়েছিলেন, দলের সঙ্গে গদ্দারি করেছেন, তাঁদের জন্য তৃণমূলের দরজা বন্ধ৷ কিন্তু যাঁরা দল ছাড়লেও সেভাবে নিম্নরুচির পরিচয় দেননি, তাঁদের কথা ভেবে দেখবে দল। যদিও শোভনকে নিয়ে তৃণমূল কী ভাবছে, তা এখনও স্পষ্ট নয়৷

নিবিড় ডেস্ক

About author

Articles

সমাজ ও সংস্কৃতির বাংলা আন্তর্জাল পত্রিকা ‘নিবিড়’। বহুস্বর এবং জনগণের সক্রিয়তা আমাদের রাজনৈতিক অবস্থান।
নিবিড় ডেস্ক

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *